দেশে সুশাসন মোটেও প্রতিষ্ঠিত হয়নি, আসল দুর্নীতিবাজদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত হয়নি

Published: বুধবার, নভেম্বর ১৮, ২০২০ ১:২৫ অপরাহ্ণ   |   Modified: বুধবার, নভেম্বর ১৮, ২০২০ ১:২৫ অপরাহ্ণ
 

ডিএল টিভি ডট কম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের (টিআইবি) নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, ‘অনেক প্রত্যাশা নিয়ে ই-জিপির প্রবর্তন হয়েছিল। আমরা ভেবেছিলাম এখন হয়তো সরকারি কেনাকাটায় দুর্নীতি কমে আসবে। সরকারি ক্রয় খাতে সুশাসন ও দুর্নীতি নিয়ন্ত্রণের ক্ষেত্রে একটা ইতিবাচক পরিবর্তন আসবে। কিন্তু হতাশার বিষয় হলো, সে রকম কোনো পরিবর্তন আসেনি। সুশাসন মোটেও প্রতিষ্ঠিত হয়নি। দুর্নীতি-অনিয়মও কমেনি। বরং অনেক জায়গায় তা বেড়েছে। এর অন্যতম কারণ হচ্ছে কেনাকাটার সঙ্গে জড়িতদের নীতি-নৈতিকতার কোনো উন্নয়ন ঘটেনি। একই সঙ্গে সরকারি কেনাকাটা আইন (পিপিআর) যারা ভঙ্গ করেন তাদের আইনের আওতায় আনা সম্ভব হয় না। এ ছাড়া যারা সরকারি কেনাকাটার ক্ষেত্রে দিনের পর দিন অনিয়ম-দুর্নীতি করে আসছে তাদের দৃষ্টান্তমূলক কোনো শাস্তি হয়নি। এর ফলে দুর্নীতিও বন্ধ হয়নি।

তিনি আরও বলেন, সরকারি কেনাকাটায় অনিয়ম বন্ধ করতে না পারার পেছনে মূলত রাজনৈতিক প্রভাব গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। দেশে রাজনীতিকে সম্পদ বিকাশের হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করার দৃষ্টান্ত রয়েছে, যা থেকে সরকারি ক্রয় খাতও মুক্ত নয়। ই-জিপিকে রাজনৈতিক প্রভাব, যোগসাজশ ও সিন্ডিকেটের দুষ্টচক্র থেকে মুক্ত করতে সব পর্যায়ের জনপ্রতিনিধি ও জনগুরুত্বপূর্ণ অবস্থানে অধিষ্ঠিত ব্যক্তির সঙ্গে রাষ্ট্রের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ ব্যবসায়িক সম্পর্কের সুযোগ বন্ধ করতে হবে। একই সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সব কর্মকর্তা ও কর্মচারীকে নিয়ম মেনে অবশ্যই সম্পদ বিবরণ প্রকাশ করতে হবে।

 
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com