পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকে সিনিয়র অফিসার পদে নিয়োগ স্থগিত

Published: বৃহস্পতিবার, জুন ২৭, ২০১৯ ৬:২০ পূর্বাহ্ণ   |   Modified: বৃহস্পতিবার, জুন ২৭, ২০১৯ ৬:২০ পূর্বাহ্ণ
 

ডিএল টিভি ডট কম

জেটিভি ডেস্ক: পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের ৪৮৫ জন উপজেলা শাখা ব্যবস্থাপকের বঞ্চিত করে সিনিয়র অফিসার হিসেবে নিয়োগের আদেশ স্থগিত করেছে সুপ্রিমকোর্ট। মঙ্গলবার আদালত এ আদেশ দেন।

একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প সূত্রে জানা যায়, সরকারের অগ্রাধিকার প্রকল্প একটি বাড়ি একটি খামার দরিদ্র মুক্ত করার লক্ষে এখানে গরিবের জন্য তহবিল করে দেওয়া হয়েছে। যার ধারাবাহিকতায় ২০১৪ সালে স্থাপন করা হয় পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক। প্রকল্পের ৮৫০০ জন ষ্টাফ দীর্ঘ ১০ বছর দরিদ্র বান্ধব এ প্রকল্প ও পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক একটি মহলের স্বেচ্ছাচারিতায় প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্নের ক্ষুদ্র সঞ্চয় মডেল আজ ভেস্তে যেতে বসেছে। গরীবের টাকা তুলে এনে ১৬ টি ব্যাংক রেখে সুদ ব্যবসা করেছে। বন্ধ করে দিয়েছে গরিব দারিদ্র বিমোচন কর্মসূচি। যার ফলে এর আওতায় ৪০ হাজার সমিতি এখন বন্ধের পথে। বঞ্চিত হচ্ছে ২২ লক্ষ গরিব পরিবার তথা ১ কোটি ৫০ হাজার মানুষ।

সম্প্রতি তারা এ প্রকল্প ও ব্যাংক প্রকল্পের জন্মলগ্ন থেকে মাথার ঘাম পায়ে ফেলে যারা প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলছে তাদের বঞ্চিত করে নতুন লোক নিয়োগের পায়তারা করছেন। হাইকোর্ট ১৫০১/ ২০১৯ ও ৭৫/২১৭৫/২০১৯ নং রিট আবেদন করেন হাইকোর্ট রীটকারীদের ন্যায় সঙ্গত আবেদনের প্রেক্ষিতে নতুন নিয়োগ বন্ধের আদেশ দেন।

পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক আইন এর ১১(জ) নং ধারায় দেশের বিভাগ থেকে গরিব সদস্যদের ৮ জন প্রতিনিধি ব্যাংকের পরিচালক হিসেবে নিয়োগের বিধান রয়েছে। গত পাঁচ বছরেও পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক একজন গরীব প্রতিনিধি ও পরিচালক হিসেবে বোর্ডে নিয়োগ দেয়নি।

উল্লেখ্য, অনুরূপ পরিচালক নিয়োগ বিধিমালা ২০১৫ গেজেট আকারে প্রকাশিত হলেও ব্যাংক কর্তৃপক্ষ কোনোভাবেই গরিবের প্রতিনিধি নিয়োগ না নিয়ে ওই অসম্পন্ন বোর্ড দিয়ে তাদের ৫৭৭ কোটি টাকা চুরি করে টাকা এনে ১৬ টি ব্যাংকের সুদ ও কমিশন ব্যবসা করছে। যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্নের প্রকল্পের মডেল ও একনেক সভার সিদ্ধান্তের বরখেলাপ করেছে ওই সংঘবদ্ধ চক্রটি। গত ৩০-০৫- ২০১৯ তারিখ নির্ধারিত ২৩ জুন তারিখের পূর্ণাঙ্গ শুনানির পূর্বেই কয়েকজন সিনিয়র অফিসার নিয়োগের আদেশ জারি করে হাইকোট। তবে ওই নিয়োগ আদেশের বিরুদ্ধে বঞ্চিত শাখা ব্যবস্থাপকদের করা রিট আবেদনের ওপর সুপ্রিমকোর্ট ১৮ জুন সকাল ১০ টার শুনানিতে ব্যাংক কর্তৃপক্ষের এ নিয়োগ আদেশ অবৈধ মর্মে স্থগিত করেছে। চাকরি বিধিমালা নতুন নিয়োগের ক্ষেত্রে ব্যাংকে কর্মরত কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের প্রথমে চাকরির সুযোগ দিবেন এবং তারপর নতুন কর্মকর্তা কর্মচারী নিয়োগ দিবেন পদোন্নতির ক্ষেত্রে ও কর্মকর্তাদের থেকে নূন্যতম ৫০% নিয়োগ প্রদান করে বাকি পদে সরাসরি নিয়োগ দিতে হবে।

এবিষয়ে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের চেয়ারম্যান মিহির কান্তি মজুমদারের সাথে মোবাইল ফোনে তার বক্তব্য জানতে চাইলে তিনি ফোনে এব্যাপারে বক্তব্য দিতে অস্বীকার করেন।